Tanvir Shahriar Rimon

Share on facebook
Share on linkedin
Share on whatsapp
Share on email

সাকিব কোনো কালেই আমার প্রিয় খেলোয়াড় ছিলনা !

0

সাকিব কোনো কালেই আমার প্রিয় খেলোয়াড় ছিলনা ! 

-তানভীর শাহরিয়ার রিমন 

আজ একটা সত্য কথা বলতে চাই ! এই কথাটা বহু বছর ধরে গহীনে গোপনে লুকিয়ে রেখেছি-বলিনি কখনো । আজ বলতে চাই…।

সাকিব আল হাসান কোনো কালেই আমার প্রিয় খেলোয়াড় ছিলনা । তার যখন অভিষেক হয় তখনো না , এমনকি সে যখন ২০০৯/১০ এ একাই বেশ কিছু ম্যাচ জিতিয়ে দিয়েছিল তখনো না ! হ্যা সে যখন ভালো করত, দল জিতত আমি খুশি হতাম ! তালি বাজাতাম । তার ফিফটি, সেঞ্চুরি কিংবা পাঁচ উইকেট প্রাপ্তি আমাকে আনন্দ দিত । কিন্তু সে আমার প্রিয় খেলোয়াড় ছিলনা কোনো কালেই ।

সাকিব যখন আইপিএল খেলতে যেত, কিংবা অন্যকোনো লীগ, আমি মনে প্রাণে ওর জন্য শুভকামনা করতাম, চাইতাম ও ভালো করুক , কারন ও ভালো খেললে দেশের নাম উজ্জ্বল হবে ।

আমি প্রকাশ্যে কখনই বলিনি যে সাকিব আমার প্রিয় খেলোয়াড় নয় ! এমনকি সে যখন বিতর্কে জড়িয়েছে, যখন তার স্পর্শকাতর অঙ্গ ক্যামেরায় দেখিয়ে ব্যাঙ্গ করেছে, বোর্ডের সাথে ঝামেলায় জড়িয়েছে তখনো বলিনি । বরং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার পাশে দাঁড়িয়েছি । 

সাকিবকে আমার কাছে অসাধারণ প্রতিভাবান কখনোই মনে হয়নি, বরং কিছুটা ভাগ্যবান মনে হতো । আশরাফুল ছিল আমার হিরো ! ওফ ! কী খেলত অ্যাশ ! কার্ডিফে অস্টেলিয়ার বিপক্ষে তার অসাধারণ সেঞ্চুরি, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে  ৫২ বলে ৯৪  ! আমি কখনো ভুলিনি…। আমার কাছে কেন যেন মনে হতো বাংলাদেশে আশরাফুলের মতো বাই বর্ন প্রতিভাবান ক্রিকেটার আর কেউ আসেনি…!

তবে সাকিব সাহসী  । সাকিবের পক্ষে ভাগ্য বারবার হেসেছে । একজন সাধারণ মানের বোলার হিসাবে দলে যোগ দিয়ে সে নিজেকে বিশ্বমানের প্রমাণ করেছে । টেস্ট, ওয়ানডে, টি-টুয়েন্টিতে কার্যকর এক অলরাউন্ডার হিসাবে নিজেকে বারবার তুলে ধরেছে ! এখনতো সে চ্যাম্পিয়ন অলরাউন্ডার ।

এবার সাকিব যখন বিশ্বকাপ খেলতে গেল, আমি ভাবিনি সে এতটা ভালো করবে । ভেবেছি, তামিম ফাটিয়ে দেবে কিংবা সৌম্য ! মুশফিকের কথাও ভেবেছি কখনো ! তাই বলে সাকিব ? না সত্যি বলছি, এতটা ভাবিনি ! 

বাকিটা তো ইতিহাস । সাকিব প্রতিটি ম্যাচে নিজেকে ছাড়িয়ে গেছে অবিশ্বাস্য ধারাবাহিকতায় । বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসাবে ৬০০ এর উপর রান আর ১১ টি উইকেট পেয়েছে । ৮ ম্যাচের সাতটিই ৫০ উর্ধ ইনিংস খেলেছে এর মাঝে দুটো আবার পিঠাপিঠি সেঞ্চুরি ! শচীন টেন্ডুলকারের রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছে সে ! 

বিশ্বাস করুন যখন বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ রান স্কোরারদের প্রতিযোগিতায় সাকিবকে শীর্ষে দেখেছি , আমি গর্বে পুলকিত হয়েছি ! আমি ওর সেঞ্চুরির জন্য, ফিফটির জন্য প্রার্থনা করেছি । দেশের নাম শীর্ষে দেখে গর্বে বুক ফুলিয়েছি । এসব কিছু করতে করতে টেরও পাইনি আমি সাকিবের এক বড় ভক্তে পরিণত হয়েছি ।

হ্যা, আজ আমি বলছি, সাকিবই আমার প্রিয় খেলোয়াড় । সে যদি ফর্ম হারায়, দলে যদি কখনো অপাংক্তেয় হয়ে পড়ে তবু সেদিন সে আমার প্রিয় থাকবে, যেমন আশরাফুল আছে এখনো । কৃতিতে অবশ্য আশরাফুলের চেয়ে বহু উচুতে আমাদের সাকিব । এই বিশ্বকাপে সাকিব যা করেছে তা আর কখনো কেউ করতে পারবে কিনা সন্দেহ ! সে একটা ওয়ান ম্যান আর্মির মতো দলকে টেনে তুলেছে, দেশের পতাকাকে সম্মানিত করেছে । এখন থেকে সাকিব মানে বাংলাদেশ !

Leave a Reply